`সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম’ নিয়ে শিগগিরই ফিরছেন ট্রাম্প

20

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ‘নিজের প্ল্যাটফর্ম’ নিয়ে শিগগিরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফিরে আসছেন বলে জানিয়েছেন তাঁর একজন উপদেষ্টা। সংবাদমাধ্যম সিএনএন ও বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

ট্রাম্পের উপদেষ্টা জ্যাসন মিলার ফক্স নিউজকে বলেছেন, ‘আমার মনে হয়, খুব সম্ভবত দুই-তিন মাসের মধ্যে আমরা ডোনাল্ড ট্রাম্পকে আবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেখতে পাব।’

জ্যাসন মিলার বলছেন, ট্রাম্পের আনা প্ল্যাটফর্মটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ‘হটেস্ট টিকেট’ বা ব্যাপক জনপ্রিয় হবে। এবং সেটি ‘খেলা পুরোপুরি বদলে দেবে’ বলে তিনি মনে করেন।

চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে ওয়াশিংটন ডিসিতে কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটলে ভয়াবহ দাঙ্গা-সহিংসতার পর ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইটার ও ফেসবুক অ্যাকাউন্ট স্থগিত করেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষদ্বয়।

গত ৬ জানুয়ারি ট্রাম্প সমর্থকদের ওই হামলায় পাঁচজন নিহত হন, যাঁদের মধ্যে একজন পুলিশ কর্মকর্তাও ছিলেন।

ক্যাপিটলে দাঙ্গার কয়েকদিন পর টুইটার ঘোষণা করে যে, সহিংসতায় আরও উসকানি দেওয়ার আশঙ্কায় ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

দশ বছরের বেশি সময় ধরে সরাসরি সমর্থকদের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য প্রচলিত গণমাধ্যম এড়িয়ে টুইটার ব্যবহার করে আসছিলেন ট্রাম্প। টুইটারে প্রায় নয় কোটি অনুসারী ছিল সাবেক এই মার্কিন প্রেসিডেন্টের।

তবে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফিরে এলে কোন প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প, তা এখনও জানা যায়নি। ট্রাম্পের উপদেষ্টা মিলার এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানাননি। তিনি শুধু বলেছেন, ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কী করবেন, সেটা দেখার জন্য সবাইকে অপেক্ষা করতে হবে।’

জ্যাসন মিলার আরও বলেছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর এই নতুন প্রকল্প নিয়ে এর মধ্যেই ফ্লোরিডায় নিজের রিসোর্টে বেশ কয়েকটি টিমের সঙ্গে ‘বড় ধরনের’ বৈঠক করেছেন।

কয়েকটি কোম্পানি ট্রাম্পের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন বলেও মিলার জানিয়েছেন।

জ্যাসন মিলার বলেন, ‘নতুন এই প্ল্যাটফর্ম অনেক বড় হতে যাচ্ছে।’ যুক্তি হিসেবে তাঁর ভাষ্য, ট্রাম্প ‘অসংখ্য মানুষকে সেখানে টেনে নিয়ে আসতে পারবেন।’

ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট স্থগিত করা হয়েছিল কেন?

ক্যাপিটল হিলে হামলা চালানো সমর্থকদের ‘দেশপ্রেমী’ বলে অভিহিত করার পর গত জানুয়ারিতে প্রথমে ১২ ঘণ্টার জন্য তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্ট লক করা হয়।

গত বছরের নভেম্বরের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বিজয়ের স্বীকৃতি দিতে ক্যাপিটলে কংগ্রেসের অধিবেশন চলাকালে হাজার হাজার ট্রাম্প-সমর্থক সেই ভবনে হামলা করে।

টুইটার সে সময় ট্রাম্পকে সতর্ক করে দিয়েছিল যে, তাদের নীতিমালা ভঙ্গ করলে তাঁর অ্যাকাউন্ট স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হবে।

অ্যাকাউন্ট ফিরে পাওয়ার পর দুটি টুইট করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপর টুইটার ঘোষণা দেয় যে, তাঁর এসব টুইট টুইটারের সহিংসতাবিরোধী নীতিমালার লঙ্ঘন।

টুইটার ছাড়াও ডোনাল্ড ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট স্থগিত করেছে ফেসবুক, গেমিং প্ল্যাটফর্ম টুইচ ও স্ন্যাপচ্যাট।

Comments
[covid19 country="Bangladesh" title="Bangladesh"]