সেগুন বাগিচা থেকে সাত ভুয়া চিকিৎসক গ্রেপ্তার

899

ভুয়া সনদধারী সাত চিকিৎসককে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আজ বুধবার (১৯ জানুয়ারি) রাজধানীর সেগুন বাগিচা থেকে তাদরে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ভুয়া চিকিৎসকরা হলেন- ইমান আলী, সুদেব সেন, তন্ময় আহমেদ, মোক্তার হোসেন, মো. কাওছার, রহমত আলী ও মাসুদ পারভেজ।

তাদের কাছে চীনের তাইশান মেডিকেলের এমবিবিএস পাসের ভুয়া সনদ ছিল। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে ভুয়া ১২ চিকিৎসক, বিএমডিসির ২ কর্মকর্তাসহ ১৪ জনকে আসামি করে মামলা করে দুদক।

মামলার এজহারে বলা হয়, আসামিরা টুরিস্ট ভিসায় চীনে ঘুরতে গিয়ে স্কুল অব ইডুকেশন তাইশান মেডিকেল না পড়েই ভুয়া সনদ তৈরি করে।

২০১৬ থেকে ২০১৮ মধ্যে কেউ চীনে গিয়েছেন পর্যটক কেউ বা শ্রমিক হিসাবে। ১ মাসের বেশি কেউ অবস্থান করেননি। কয়েকজন আবার কখনো যাননি চীনে। কিন্তু সবারই রয়েছে চীনের স্কুল অব ইন্টারন্যাশনাল এডুকেশন তাঈশান মেডিকেল ইউনিভার্সিটির ডাক্তারের সদন। দুদকের হট লাইন ওয়ান জিরো সিক্সে আসা এমন অভিযোগের ভিত্তিতে অনুসন্ধানে নামে সংস্থাটি।

২০১৯ সালে, ১২ জনের তথ্য যাচাই-বাছাই করতে বেইজিংয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসকে অনুরোধ জানায় দুদক। পরে জানা যায় সবার সনদই ভুয়া। এক বছর পর, এমবিবিএস রেজিস্ট্রেশন দেয়ার অভিযোগে বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের রেজিস্ট্রারসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক।

দুর্নীতি দমন কমিশনের সচিব মাহবুব হোসেন জানিয়েছেন, ভুয়া সনদ নিয়ে কারা ব্যবসা করছে নজর রাখছে তারা।

Comments
[covid19 country="Bangladesh" title="Bangladesh"]