সংক্রমণ ঠেকাতে করোনা আক্রান্তদের ধাতব বাক্সে বন্দী করছে চীন!

15

কড়াকড়ির মাঝেও বেশ কিছু শহরে করোনা সংক্রমণের বাড়বাড়ন্ত মাথাব্যথার কারণ হয়ে উঠেছে চীন সরকারের। পরিস্থিতি নাগালের মধ্যে রাখতে নিভৃতবাস, বিচ্ছিন্নবাস, লকডাউন সব পন্থাই নিয়েছে তারা। এত কিছু করেও সংক্রমণ আয়ত্তে আনা যাচ্ছে।

সংবাদমাধ্যম জানায়, করোনা ঠেকাতে এবার নতুন পথ বেছে নিয়েছে চীন। সংক্রমিত ব্যক্তিদের ধাতব বাক্সে বন্দী করতে শুরু করেছে শি চিনপিং সরকার। এ খবরে নেটমাধ্যমে ভাইরাল এক ভিডিও-র বরাত দেওয়া হচ্ছে।

কয়েক সপ্তাহ পরেই শীতকালীন অলিম্পিকসের আসর বসবে বেজিংয়ে। এর মাঝে করোনার দাপট যথারীতি মাথাব্যথার কারণ হয়েছে দেশটির।

সব মিলিয়ে কভিড সংক্রমণ রুখতে নীতিতে বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছে চীন। এই ধাতব বাক্স সেই পরিবর্তনে নতুন সংযোজন।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, কভিড সংক্রমিত ব্যক্তিদের বা তাদের সংস্পর্শে আসা সবাইকে ধাতব বাক্সের মতো ঘরে ঢুকিয়ে দেওয়া হচ্ছে। সেখানে রয়েছে একটি খাট, পানির বোতল ও শৌচাগার।

মধ্য চীনের শাংচি প্রদেশের শিয়ান শহরে খোলা হয়েছে এই নিভৃতবাস ক্যাম্প। সেখানে বাচ্চা থেকে শুরু করে বয়স্ক, এমনকি, গর্ভবতী মহিলাদেরও অন্তত দু’সপ্তাহের জন্য জোর করে রাখা হচ্ছে বলে অভিযোগ।

বাড়তে থাকা সংক্রমণের দরুন শহরের প্রায় দুই কোটি বাসিন্দাকে বাড়িতেই থাকতে বলা হয়েছে। খাবার কিনতে বাইরে বেরোনোর ক্ষেত্রেও দেওয়া হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। সোমবার সেখানে ১৩ জন নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন।

এ দিকে মাত্র দুজন ওমিক্রন সংক্রমিতের সন্ধান পাওয়ার পর চীনের আনিয়াং শহরে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। সংক্রমণ রুখতে এতটাই কড়া অবস্থান নিয়েছে যে, কোনো বহুতলের একজন বাসিন্দা সংক্রমিত হলেও ওই ভবনের সব বাসিন্দাকে নিভৃতবাসে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ইউচৌ শহরেও এক সপ্তাহের জন্য কড়া লকডাউনের ঘোষণা করা হয়েছে। সম্প্রতি সেখানে মাত্র তিনজন উপসর্গহীন সংক্রমিতের খবর পাওয়া যায়।

Comments
[covid19 country="Bangladesh" title="Bangladesh"]