যে ঘটনা হৃদয় ছুঁয়েছে!

53

গেল ২৪ জুলাইয়ের কথা। দাদা তফাজ্জল মিয়ার সঙ্গে গরু বেচতে কোরবানীর পশুরহাটে এসেছিল ১২ বছরের অর্থি। বগুড়ার সদর উপজেলার নামুজা গ্রামে বাড়ি তাদের।

নিজের লালন-পালন করা গরু নিয়ে দাদার সঙ্গে অর্থি এসেছিল ঘোড়াধাপ হাটে। যে গরুটাকে সে বেচতে এসেছে, এই বাছুরটা তাদের দুধেল গাভির। বাছুরটা তার চোখের সামনে বড় হয়েছে। খুব যত্ন করেছে সে।

গরুটার দামদর ঠিক হওয়ার পর অর্থির খুব মন খারাপ হয়ে গেল। যাকে সে যত্ন করে খাইয়েছে এতোদিন আজ তাকে অন্যের হাতে তুলে দিতে হল। ক্রেতা যখন গরুটাকে নিয়ে যেতে ধরল, কান্নায় ভেঙে পড়ল অর্থি।

অর্থির দাদা তফাজ্জল বলছিলেন, নিজের গাইয়ের পেটের গরু তো। পাশ থেকে একজন বলল, ‘মাইয়া কান্দে ক্যা?’ দাদা বললেন, ‘বয়স কম মাইয়ার গো। বাছুরের সাথে খেলে বড় হছে সেই গরু আজ বেচে দিনু।’ তাঁর চোখও টলমল করছে তখন।

অর্থির কান্নায় আশপাশের লোকজন জড়ো হয়ে গেল। অনেককে দেখা গেল সান্তনা দিতে। কেউ কেউ বলল অর্থি ত্যাগেই যে কোরবানীর শিক্ষা! সবার কথা শুনলেও, কান্না থামালেও ক্যামেরাবন্দি হয়ে রইল কষ্টের সেই মায়াজাল।

Comments
[covid19 country="Bangladesh" title="Bangladesh"]