“বাংলাদেশ ডায়াবেটিস কেয়ার” ডায়াবেটিস চিকিৎসায় নতুন দিগন্ত

75

বাংলাদেশ প্রায় ২ কোটি ডায়াবেটিস রোগী আছে। ডায়াবেটিক ফুট (Diabetic Foot) একটি ডায়াবেটিস রোগজনিত পায়ের রক্তনালীর জটিলতা। প্রায় ৫০% ডায়াবেটিস রোগীর জীবদ্দশায় ফুট আলসার হয়। ৯০% রোগীর পা কাটা পড়ে ডায়াবেটিক ফুট এর কারণে।

বিশ্বে প্রতি ৩০ সেকেন্ডে ১ জন ডায়াবেটিস রোগীর পা/পায়ের অংশ কাটা পড়ে (IDF)। ডায়াবেটিসের একজন রোগীর পা কাটা পড়ার ঝুঁকি ডায়াবেটিস নেই—এমন সাধারণ মানুষের তুলনায় ২৫ গুণ বেশি।

আর এ জন্য যে কেবল সংক্রমণ দায়ী, তা নয়; ডায়াবেটিসের কারণে স্নায়ুর সমস্যা থেকে পায়ে দেখা দিতে পারে অসাড় বা ঝিমঝিম ভাব, অনুভূতিহীনতা, ধমনিতে রক্তপ্রবাহ ব্যাহত হওয়া, সহজে জখম ও সংক্রমণ,ক্ষত ও গঠন বিকৃতি। অনেক সময় পা নাড়ানোর ক্ষমতাও কমতে থাকে। হাঁটতে গেলেও পায়ে ব্যথা হয়। কারও কারও ক্ষেত্রে পায়ের হাড়ে ব্যথা হয় বা জায়গায় জায়গায় ফুলে গিয়েও ব্যথা শুরু হয়। আক্রান্ত পা বা পায়ের অস্থিসন্ধি হঠাৎ লাল হয়ে ফুলে যাওয়াও এই রোগের অন্যতম লক্ষণ।

পায়ে কোনও ভাবে কেটে বা ছড়ে গেলে তা শুকোতে দেরি হওয়া, তাতে অল্প দিনেই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে দেখলেও সচেতন হতে হবে। পায়ের আঙুলের খাঁজে খাঁজেও ঘা দেখা যেতে পারে—সবকিছু মিলিয়ে ডায়াবেটিসের রোগীর পা দুটি খুবই নাজুক অবস্থায় থাকে।ক্ষেত্রভেদে ১০ থেকে ৪০ শতাংশ ডায়াবেটিক ফুটের রোগীর কোনো ব্যথার অনুভূতি থাকে না।

অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিসের কারণে সূক্ষ্ম রক্তনালি নষ্ট হয়ে গিয়ে স্নায়ুতে রক্তপ্রবাহ ব্যাহত হয় বলে ব্যথার অনুভূতি নষ্ট হয়ে যায়। এ ছাড়া ডায়াবেটিক ফুটের ১০ থেকে ২০ শতাংশ রোগীর ধমনি সরু হয়ে রক্তপ্রবাহ ব্যাহত হয়, এমনকি রক্ত চলাচল বন্ধও হয়ে যেতে পারে। এই রোগীরা সব সময় পায়ে আঘাত বা সংক্রমণের ঝুঁকিতে থাকেন।

নিয়মিত পা পরীক্ষা করে শ্রুতেই রোগটি সনাক্ত করা গেলে অঙ্গহানী থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব। ইন্টারন্যাশনাল ওয়ারকিং গ্রুপ ফর ডায়াবেটিক ফুট (IGWDF), আমেরিকান ডায়াবেটিক অ্যাসোসিয়েশন (ADA) সহ অন্যান্য ডায়াবেটিক অর্গানাইজেশণ এর গাইডলাইন অনুযায়ী প্রত্যেক ডায়াবেটিস রোগীর নিয়মিত নিম্নক্ত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে হবে-

১। নিউরোপ্যাথি
২। পেরিফেরাল আর্টারিয়াল ডিজিজ- PAD
৩। অ্যাবনরমাল প্লানটার প্রেসার

সারা বিশ্বে এই পরীক্ষাসমূহ সহজলভ্য হলেও আমাদের দেশে ছিল অবহেলিত এবং উপেক্ষিত। বাংলাদেশ এ এই প্রথম কম্প্রিহেন্সিভ ডায়াবেটিক ফুট এক্সামিনেশন সেবা চালু হল “বাংলাদেশ ডায়াবেটিস কেয়ার” এ। বাংলাদেশে ডায়াবেটিস রোগীর জীবনমান উন্নয়নে “বাংলাদেশ ডায়াবেটিস কেয়ার” সর্বাত্তক সহযোগিতা নিয়ে পাশে থাকবে বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির ব্যাবস্থাপনা পরিচালক জনাব সাদিকুল আরেফিন ।

তিনি আরও বলেন, সঠিক খাদ্যাভ্যাস, সুশৃঙ্খল জীবনযাপন, পরিমিত কায়িক শ্রম এবং ডায়াবেটিস শিক্ষাই হচ্ছে এই মহামারী থেকে বাঁচার মূল্যমন্ত্র।

বাংলাদেশ ডায়াবেটিস কেয়ার
কনসেপ্ট টাওয়ার, (২য় তলা) ৬৮/৬৯ গ্রীন রোড, পান্থপথ সিগন্যাল, ঢাকা।
www.bddc.com.bd
01732577400
01936090907

Comments
[covid19 country="Bangladesh" title="Bangladesh"]