প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও শিক্ষা কার্যক্রম চলবে অনলাইনে

8

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও অনলাইন অ্যাসাইনমেন্টের মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম চলবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বিকেলে মতিঝিলে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে একথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আবাসিক হল খোলা থাকবে। তবে, হলগুলোতে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে বলেও জানান তিনি।

এর আগে শুক্রবার সকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে ২১ জানুয়ারি থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্কুল, কলেজ ও সমপর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধসহ পাঁচ নির্দেশনা জারি করেছে সরকার।

সংক্রমণ ঠেকাতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা নতুন বিধি-নিষেধ সম্বলিত এক প্রজ্ঞাপণে এই সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে। প্রজ্ঞাপণে বলা হয়, অফিস আদালত অর্ধেক জনবল নিয়ে চালু থাকবে। পাশাপাশি যে কোনো সামাজিক, রাজনৈতিক বা ধর্মীয় অনুষ্ঠানে একশ জনের বেশি জনসমাগম করা যাবে না উল্লেখ করে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এসব অনুষ্ঠানে যারা অংশ নেবেন, তাদের বাধ্যতামূলকভাবে টিকা সনদ সাথে রাখতে হবে এবং আগের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে করা পিসিআর টেস্টের রিপোর্ট সাথে রাখতে হবে বলে জানানো হয়েছে।

করোনা সংক্রমণের কারণে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। করোনা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলে দীর্ঘ ১৮ মাস পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা লক্ষ্য করেছি স্কুলের সংক্রমণ হার বেড়ে যাচ্ছে। অনেক ছাত্র-ছাত্রীরা আক্রান্ত হচ্ছে এবং তারা ডাক্তারের কাছে যাচ্ছে চিকিৎসার জন্য। এটা আশঙ্কাজনক।

তিনি বলেন, সে কারণে আমরা প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলোচনা করে তার সম্মতি সাপেক্ষে স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আগামী দুই সপ্তাহ স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকবে। দুই সপ্তাহ পরে পরিস্থিতি বুঝে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

Comments
[covid19 country="Bangladesh" title="Bangladesh"]