করোনা কাউকে করে না করুণা : ওবায়দুল কাদের

11

দেশে নভেল করোনাভাইরাস আবারও ‘হিংস্র ছোবল মারছে’, তবুও কেউ স্বাস্থ্যবিধি মানছে না। আর, এই অবহেলার ‘চরম মাশুল গুনতে হবে’ বলে মনে করছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের ভেরিফায়েড অ্যাকাউন্টে আজ শনিবার এক পোস্টে এসব বলেন সেতুমন্ত্রী। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ভাইরাস আবারও হিংস্র ছোবল মারছে আমাদের উদাসীন শহরে, চরম উপেক্ষার গ্রামীণ জীবনে।’

‘চারদিকে ছড়িয়ে পড়েছে আতঙ্ক। হাসপাতালের বেডের জন্য সংক্রমিত মানুষের স্বজনদের হাহাকার। খেটে খাওয়া মানুষের জীবিকার চাকা থেমে যাচ্ছে। থেমে যাচ্ছে জীবনের চিরচেনা সুর। থেমে গেছে সেই পাখির কলরব। থেমে গেছে নদীর কলতান। থমকে গেছে চন্দ্র-তারকাখচিত রাতগুলো।’

তবে অনেক কিছু বদলে গেলেও অনিয়ম বদলায়নি উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের আরও লিখেছেন, ‘বদলে গেছে প্রকৃতির রঙ, বদলে গেছে জীবনের রঙ, বদলে গেছে রাজনীতির রঙ, বদলে গেছে আমাদের আচার-আচরণের রঙ। শুধু বদলায়নি অনিয়মের নিরন্তর যাত্রা। বদলায়নি শৃঙ্খলাভঙ্গের অপরাধ। মানুষের শত্রু ভাইরাসকে মানুষই জানাচ্ছে সাদর আমন্ত্রণ।’

‘অথচ এই প্রাণঘাতী ভাইরাস কেড়ে নিয়েছে কত আপনজনের প্রাণ। নিভিয়ে দিয়েছে কত চোখের বাতি। তছনছ করে দিয়েছে কত সাজানো সংসার। এই জনপদের কত মানুষ আজ করোনার আঘাতে নিঃস্ব-রিক্ত।তবু কেউ মানে না স্বাস্থ্যবিধি। মাস্ক পরতে চায় না বেশির ভাগ মানুষ। লকডাউনের কড়াকড়িতে ঢিলেঢালাভাব। পাত্তাই দিচ্ছে না কেউ ভয়ংকর করোনাকে। কিন্তু, করোনা কাউকে করে না করুণা’, লিখেছেন ওবায়দুল কাদের।

সেতুমন্ত্রী আরও লিখেছেন, ‘জানি না আর কতকাল গুনতে হবে আমাদের নিজেদের অবহেলার, উপেক্ষার চরম মাশুল। আমাদের সচেতন হওয়ার সময় কি এখনো আসেনি?’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সতর্কবাণীর কথা উল্লেখ করে সেতুমন্ত্রী আরও প্রশ্ন করেন, ‘দেশের জনগণের নিশ্চিন্ত ঘুমের জন্য যিনি সারা রাত জেগে থাকেন, তাঁর বার বার উচ্চারিত সতর্কবাণী কি কানে পৌঁছায় না? নিজেদের সুরক্ষার স্বার্থে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার করোনা নিষেধাজ্ঞা আমরা মানব না?’

‘না মানলে আমাদের সামনে নির্ঘাত অশনি সংকেত’, পোস্টের শেষ বাক্যে সতর্কবাতা ওবায়দুল কাদেরের।

Comments

Bangladesh

Confirmed
777,397
+1,140
Deaths
12,045
+40
Recovered
718,249
Active
47,103
Last updated: মে ১২, ২০২১ - ১:৪৭ অপরাহ্ণ (+০০:০০)