করোনায় আরও ৫১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৮৭১

9

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৫১ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৬ হাজার ৯৩১ জনে। এ সময় আরও এক হাজার ৮৭১ জনের দেহে ভাইরাসটি শনাক্ত করা হয়েছে।

আজ রোববার (৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ৮০২টি করোনা পরীক্ষাগারে ২৫ হাজার ১১২টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে মোট ২৫ হাজার ৭৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯২ লাখ ৪৬ হাজার ৭৩৩টি। পরীক্ষায় আরও এক হাজার ৮৭১ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছেন। ফলে দেশে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ১৫ লাখ ৩০ হাজার ৪১৩ জনে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, একদিনে মৃত ৫১ জনের মধ্যে পুরুষ ২২ জন ও নারী ২৯ জন। তাঁদের মধ্যে ৪৩ জন সরকারি, আটজন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন। মৃতদের মধ্যে এখন পর্যন্ত মোট ১৭ হাজার ৩৫৮ জন পুরুষ (৬৪ দশমিক ৪৫ ভাগ) ও নয় হাজার ৫৭৩ জন নারী (৩৫ দশমিক ৫৫ ভাগ) রয়েছেন।

এছাড়াও গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও তিন হাজার ৫৮৬ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৪ লাখ ৭৮ হাজার ৮২১ জনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার শতকরা ৭ দশমিক ৪৬ ভাগ। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৫৫ ভাগ এবং শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৬ দশমিক ৬৩ ভাগ। আর শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার এক দশমিক ৭৬ ভাগ।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃতদের মধ্যে দশোর্ধ্ব একজন, বিশোর্ধ্ব দুইজন, ত্রিশোর্ধ্ব তিনজন, চল্লিশোর্ধ্ব সাতজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব ১৬ জন এবং ষাটোর্ধ্ব ২২ জন রয়েছেন। মৃতদের মধ্যে ঢাকায় ১৯ জন, চট্টগ্রামে ১৪ জন, রাজশাহীতে একজন, খুলনায় নয়জন, সিলেটে ছয়জন এবং রংপুর ও ময়মনসিংহে একজন করে রয়েছেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ এর ডিসেম্বরে চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস পৃথিবীজুড়ে মহামারীতে রূপ নেয়। বাংলাদেশে প্রথম করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়ে গত বছর ৮ মার্চ। এরপর একই বছরের ১৮ মার্চ দেশে করোনায় প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

Comments
[covid19 country="Bangladesh" title="Bangladesh"]