অপু বিশ্বাস; ঈদে মুসলিম, পূজোয় হিন্দু

3

বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় তারকা অপু বিশ্বাস। ২০০৮ সালে শাকিব খানকে বিয়ে করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। বিয়ের খবর ফাঁস হওয়ার জানা যায় তিনি ধর্মান্তরিত হয়েছেন।

২০১৭ সালের ১০ এপ্রিল সন্তান জয়কে নিয়ে একটি টিভি চ্যানেলের লাইভে এসে এসব তথ্য জানিয়েছিলেন অপু। এরপর শাকিব খানের সঙ্গে ডিভোর্স হওয়ার পরই তিনি মুসলিম ধর্ম পালন করবেন বলে জানিয়েছিলেন।

সে সময় অপু বিশ্বাস বলেন, আমি হিন্দু ধর্মের অনুসারি হলেও শাকিবকে বিয়ে করে মুসলিম হয়েছি। তবে ডিভোর্সের পর অপশন থাকলে আবার হিন্দু ধর্মে ফিরে যেতাম। তবে ছেলের জন্য ইসলাম ধর্মই পালন করবো। তবে এখন আবার নতুন ভাবে অন্য কথা শোনা যাচ্ছে। অপু বিশ্বাস নাকি তার পুরানো ধর্মে ফিরে যাবেন। শারদীয় দুর্গোৎসব পালন করবেন তিনি।

ধর্ম পালন নিয়ে অপু বিশ্বাসের দুমুখো কথায় বিরক্ত ভক্তরা। কারণ অপু বিশ্বাস ধর্ম পালন নিয়ে নাটকীয়তার আশ্রয় নিচ্ছেন বরাবর। এই যেমন ঈদ বা রোজার আগে বলেছেন তিনি ইসলাম ধর্ম পালন করছেন। আবার দূর্গা পূজার আগে গণমাধ্যমের কাছে অপু বললেন, ‘আমি হিন্দু ধর্মেই আছি। এবার আমি দূর্গা পূজা করবো এবার।’

সম্প্রতি এই নায়িকা জানালেন, ‘আমাকে তো শাকিব কাগজ-কলমে মুসলিম করেননি। সে প্রমাণও তার কাছে নেই। আমি মনে প্রাণে বিশ্বাস করেছিলাম ইসলাম ধর্মের কথা, এখনও করি। কিন্তু আমার বাবা-মার সঙ্গে থেকে তো আমি তা পালন করতে পারি না। ‘আমি কোরআন শিখেছি, এখনও জানি, আমি পড়তেও পাড়ি। কিন্তু আমার তো ধর্ম পরিবর্তন কাগজে-কলমে হয়নি।’

ধর্ম পালন নিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘সামনে আমার একটা ভালো পরিকল্পনা আছে পারিবারিকভাবে। এতদিন নিজের পরিকল্পনায় চলেছি, এবার বাড়ির কথামতো চলতে হবে। কাগজে-কলমে, মনে প্রাণে বা গরুর মাংস খেয়ে বা হজ্ব করে আমি নিজে মুসলিম হইনি। একজনকে ভালোবেসে মুসলিম ধর্মকে সম্মান দেখিয়েছি, আজও দেখাই। সব ধর্মের প্রতি আমার সম্মান ও শ্রদ্ধা আছে। আমার যখন শাকিব খানের সঙ্গে বিয়ে হয়েছে তখন আমি এক ঝলক কাবিননামা দেখে পরে আর তার কোনো হদিস পাইনি। আদালতের মাধ্যমে যেভাবে ধর্মান্তর করা হয়, আমার বেলায় সে রকম কিছুই হয়নি। ঈদ এবং ইসলাম ধর্মের প্রতি আমার যথেষ্ট সম্মান রয়েছে। কিন্তু আমার কখনো ঈদ উদযাপন করা হয়নি। কোরবানি ঈদ থেকে শুরু করে কোনো ঈদে কোনোদিন কিংবা এখনও আমি গো-মাংস স্পর্শ করিনি। আমার বাসার কাজের লোকদের জন্য আমি খাসি কোরবানির ব্যবস্থা করি।