আর কতো মাইর খেলে, আমার চিকিৎসক সত্তা প্রশান্তির পরশে থাকবে?

159

ডা. আব্দুল্লাহ আল মাসুম :স্কয়ার হাসপাতাল টু পঠিয়া, রাজশাহী; ভয়া সমগ্র বাংলাদেশ- কোথাও চিকিৎসক দের নিরাপত্তা নেই!

সরকার ইচ্ছে করেই মাইর খাওয়াচ্ছেন। কারণ চিকিৎসা করবার মতো স্বাবলম্বী সেন্টার না করেই দোকান খুলেছেন অহরহ! মানুষও বাঁচার আকুলতা নিয়ে আসে ২৪ ঘন্টা!

একটা সেলুনে যদি চুল কাটানোর সকল কিছু না রেখেই আপনার চুল কাটতে থাকে নরসুন্দর – আপনি কি করবেন মাঝপথে??

সমস্যা সবাই জানেন।
মন্ত্রী জানেন। সচিব জানেন। ডিজি জানেন। চিকিৎসক নেতৃত্ব জানেন।

এমনকি সকলেই সমাধানও জানেন – আশ্চর্যের বিষয় সমাধানের চেষ্টাটা শুধু কেউ করছেন না।

মাইর হচ্ছে!
হাসপাতাল ভাংচুর হচ্ছে!
মহিলা চিকিৎসক টিজিং হচ্ছে!
গণহারে হচ্ছে এসব!

সমাধানের সাহসী পুরুষের অভাব চৌদিকে।

প্রতিনিয়ত চিকিৎসকদের নিরাপত্তা হুমকিতে রেখে, রোগীদের কল্যাণ – অসম্ভব।

হরতাল অবরোধ এর ডাক দিলেও দোষ হবে! মিডিয়া বলা শুরু করবে – কথায় কথায় হরতাল করে চিকিৎসক সমাজ!!

নাদের আলী!
আমি আর কতো মাইর খেলে, আমার চিকিৎসক সত্তা প্রশান্তির পরশে থাকবে?
মাইর খেতে খেতে –
অবিশ্বাসের দানা পাহাড় চুড়ায় উঠলে
রোগীরা যখন আশেপাশের দেশে দৌড়াতে দৌড়াতে
ফকির সাজবে বা
দেশের বৈদেশিক মুদ্রা নষ্ট হবে,
চিকিৎসকগণ হাসপাতাল ফেলে যখন
হালচাষ বা উবারের ড্রাইভার হবে-
তখন তুমি
ভালবাসার চিকিৎসাবান্ধব পরিবেশ দিবে?

নাদের আলী-
তুমিই তো আমায় ভগবানের ছোট ভাই ডাকো
তাহলে আমায় বলো –
ভগবানের ছোটভাইদের যদি
রাষ্ট্র বৈরিতা করে, জুলুম করে
তোমরা নাদের আলীরা যদি
আহত করো, নিহত করো স্বপ্ন
ভগবান তোমাদের সুখে রাখবেন?
ছোটভাইদের আঘাতের প্রতিশোধ
ভগবান নিজ হাতেই নেবেন কি না?

তখন, নাদের আলী
আমি তোমাদের দিকে
ফিরেও তাকাবো না।

লেখক : মেডিসিন বিশেষজ্ঞ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।