সংসদ চত্বরে মোজাম্মেল হোসেনকে শেষ বিদায়

41

বাগেরহাট-৪ আসনের সংসদ সদস্য সাবেক প্রতিমন্ত্রী মো. মোজাম্মেল হোসেনকে শেষ বিদায় জানিয়েছেন তার দীর্ঘদিনের সহকর্মীরা।

শুক্রবার সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় মোজাম্মেল হোসেনের জানাজা হয়। জানাজার আগে ঢাকা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল হোসেনের কফিনে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গার্ড অব অনার দেওয়া হয়।

রাষ্ট্রপতির পক্ষে তার সামরিক সচিব প্রয়াত সাংসদের কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কফিনে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন।

পরে আওয়ামী লীগ সভাপতি হিসেবে শেখ হাসিনা দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের সঙ্গে নিয়ে আদালভাবে শ্রদ্ধা জানান প্রয়াত সহকর্মীর প্রতি।

এরপর স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন মোজাম্মেল হোসেনের কফিনে।

ঢাকায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাত ১২টা ৪০ মিনিটে মারা যান ৮০ বছর বয়সী মোজাম্মেল। বেশ কিছুদিন ধরে কিডনি জটিলতাসহ নানা রোগে ভুগছিলেন তিনি।

পেশায় চিকিৎসক মো. মোজাম্মেল হোসেন মৃত্যু পর্যন্ত ছিলেন বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। পাঁচবার তিনি সংসদে বাগেরহাটের ভোটারদের প্রতিনিধিত্ব করেছেন।
ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া, প্রধান হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী, হুইপ ইকবালুর রহিম এবং বিরোধীদলের নেতার পক্ষ থেকেও মোজাম্মেল হোসেনের কফিনে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদ, সাবেক প্রধান হুইপ আ স ম ফিরোজ, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি শাজাহান খান , দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ বি তাজুল ইসলাম, সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, মির্জা আজম, আব্দুস সোবহান গোলাপসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনগুলোর নেতা-কর্মী এবং সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও জানাজায় অংশ নেন।

জানাজার আগে মোজাম্মেল হোসেনের সংক্ষিপ্ত জীবন বৃত্তান্ত পাঠ করেন হুইপ ইকবালুর রহিম।

পরে প্রয়াত সাংসদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীও দোয়া ও মোনাজাতে অংশ নেন।

বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ কামরুজ্জামান টুকু জানান, ঢাকায় এক দফা জানাজা শেষে দুপুরে হেলিকপ্টারে করে বাগেরহাটে নেওয়া হবে মোজাম্মেল হোসেনের মরদেহ।

শহরের রেলরোডে আওয়ামী লীগের জেলা কার্যালয়ের সামনে দলীয় নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষ প্রয়াত এই নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন।

জুমার নামাজের পর বাগেরহাট শেখ হেলাল উদ্দীন স্টেডিয়ামে ডা. মোজাম্মেলের জানাজা শেষে কফিন নিয়ে যাওয়া হবে মোরেলগঞ্জ উপজেলায় তার গ্রামের বাড়িতে।

সেখানে কচুবুনিয়া হাজী রহমত আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে আরেক দফা জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে প্রয়াত সংসদ সদস্যকে।