শ্যামলীর টিবি হাসপাতালে ই-হেলথ কার্যক্রম শুরু

167

নিজস্ব প্রতিবেদক: ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট টিবি হাসপাতালে ডিজিটাল পদ্ধতিতে প্রেসক্রিপশন ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ডিজিটালাইজেশনে আরো একধাপ এগিয়ে গেলো ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট টিবি হাসপাতাল। সুন্দর মনোরম পরিবেশ বেষ্টনীতে পরিচ্ছন্ন এই টিবি হাসপাতাল পুরোটাই ডিজিটালাইজড করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, বর্তমান সরকারের সকল সেক্টরে ডিজিটালাইজড এর অংশ হিসাবে অত্র হাসপাতাল ডিজিটালাইজড করার ব্যাপারে হাসপাতালের প্রকল্প পরিচালক ও উপ পরিচালক ডাঃ আবু রায়হান স্যার অগ্রনী ভুমিকা প্রালন করেন।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান, রোগীদের আরো দ্রুত ও সুচিকিৎসা প্রদানের নিমিত্তে ডিজিটাল প্রেসক্রিপশন সেবা চালু করা হয়। সরকারি হাসপাতালে ডিজিটাল প্রেসক্রিপশন একটি নতুন ধারণা। দ্রুত রোগী দেখার জন্য এটির কোন বিকল্প নেই। সকল ক্ষেত্রে ডিজিটাল ব্যবস্থা প্রনয়ণ করাই আমাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। যাতে আমাদের রোগীর ভোগান্তি শুন্যের কোটায় আনতে পারি।

জানা যায়, ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট টিবি হাসাপাতালের আন্তঃ বিভাগের কর্মক্রম চালু হয় গত ০১ জানুয়ারী ২০১৭ ইং সালে। প্রথম পর্যায়ে ১৫০ বেড চালু রয়েছে এবং এর মধ্যে ৪২ টি কেবিন। অত্র হাসপাতালের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য সকল বিভাগ মিলিয়ে চিকিৎসক ছিলেন ৩৫ জন।

কিন্তু স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণায়ের স্মারক নং- ৪৫.০০.০০০০.১৪৭.১২.০০৬.১৯-৫০১, তারিখঃ ১৭/০৬/২০১৯ইং ও স্মারক নং- ৪৫.০০.০০০০.১৪৭.১২.০৩২.১৯-১১৩০ইং তারিখে পর পর দুইটি বিভাগীয় পদোন্নতি হওয়ায় উক্ত হাসপাতাল হইতে দুই পর্যায়ে মোট ১১ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বদলী হওয়ায় বর্তমানে কর্মরত চিকিৎসক ২৩ জন। এই ২৩ জনের মধ্যে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক মাত্র ৪ জন এবং মেডিকেল অফিসার ১২ জন। এই স্বল্প সংখ্যাক চিকিৎসক দ্বারা একটি বিশেয়ায়িত হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা প্রদান কষ্ট সাধ্য হয়ে পড়েছে।

এমন সংকটপূর্ণ অবস্থাতেও অত্র হাসপাতালের সকল সেবা সমূহ বহিঃ বিভাগ, অ্যাজমা- সিওপিডি, অন্ত বিভাগ, আই.সি. ইউ- এইচ.ডি.ইউ ব্রঙ্কোস্কপি, সার্জারী, প্যাথলজী, মাইক্রোবায়োলজি, বায়োকেমিষ্ট্রি, রেডিওলজি বিভাগ ও জরুরী বিভাগ যথা নিয়মেই ২৪ ঘন্টা চালু আছে।