ডাক্তারের উপর হামলাকারী সেই যুবলীগ নেতার স্বীকারোক্তি ভাইরাল

355

নিজস্ব প্রতিবেদক: চিকিৎসকের উপর হামলার ঘটনায় নিজে জড়িত বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন সিরাজগঞ্চের বেলকুচিত উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান শেখ ইউসুফ।

স্বীকারোক্তিতে তিনি এবং তার সমর্থকরা হামলা করেছেন বলে স্বীকার করেছেন। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে যদি তিনি দোষী হন তাহলে তাকে যা শাস্তি দেওয়া হয় সেটাও মেনে নেবেন বলে জানিয়েছেন।

বেলকুচি উপজেলা স্বাস্থ্য কম্পেক্সে কর্মরত ভুক্তোভূগী ওই চিকিৎসেকর নাম ডা. শাকিল হামজা। গত সোমবার তার উপর হামলা করে শেখ ইউসুফ ও তার সমর্থকেরা। এ ঘটনায় তিনি ও তার নেতাকর্মীরা জড়িত বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন ইউসুফ।

স্বীকারোক্তিতে তিনি বলেন, ওই হাসপাতালে টাইফেইডের এক মহিলা রোগী আসছিল। সে অনুমতি ছাড়া ১০ নাম্বারে একটা স্লিপ নিয়েছিল। এসময় ওই মহিলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

হামলাকারী যুবলীগ নেতার সঙ্গে ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি এন্ড রাইটস এর চেয়ারম্যান ডা. এম. আবুল হাসনাত মিল্টনের সঙ্গে কথাকপোথন হয়। ওই ফোনালাপে যুবলীগ নেতা বলেন, আপনি এখানে আসেন। এসে তদন্ত করেন। তদন্তে যা হয় সেজন্য বিচার করেন। আমি অপরাধী হলে আমাকে শাস্তি দিন।