গ্রন্থমেলায় ‘গর্ভকালীন ডায়াবেটিস, থায়রয়েড ও উচ্চ রক্তচাপঃ সমস্যা ও করণীয়’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন

43

গ্রন্থমেলায় ‘গর্ভকালীন ডায়াবেটিস, থায়রয়েড ও উচ্চ রক্তচাপঃ সমস্যা ও করণীয়’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে। আজ শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে গ্রন্থটির মোড়ক উন্মোচন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়রে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মোহাম্মদ সামাদ (সভাপতি, জাতীয় কবিতা পরিষদ)।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ডাঃ এম ইকবাল আরসলান, সাবেক ডীন, বেসিক সায়েন্স, বিএসএমএমইউ (সভাপতি, স্বাচিপ)। গ্রন্থটি অনিন্দ্য প্রকাশনা (প্যাভেলীয়ন ০৩১, সোহরাওয়ারদী উদ্যান অংশে) থেকে প্রকাশিত হচ্ছে।

এসময় বক্তারা বলেন, গর্ভকালীন ডায়াবেটিস একটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা। যদিও এটি ডায়াবেটিসেরই একটি অংশ। এটিকে শনাক্তকরণের জন্য বিশেষভাবে উদ্যোগ নিতে হবে, চিকিৎসার জন্য বিশেষ বিবেচনা রাখতে হবে এবং এতে আক্রান্ত মহিলা, তার পরিবার ও সেবাদানকারী চিকিৎসকদের বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে অংশ নিতে হবে। পৃথিবীতে যে সব দেশে গর্ভকালীন ডায়াবেটিস রোগের হার সবচেয়ে বেশি তার মধ্যে বাংলাদেশ একটি।

‘অন্যদিকে থায়রয়েডজনিত সমস্যার কারণে অনেক দম্পতি সন্তান ধারণে ব্যর্থ হতে পারে। যাদের থায়রয়েডজনিত সমস্যা আছে তাদের মধ্যে গর্ভপাতে হার অনেক বেশি। গর্ভধারণকারিনী থায়রয়েড হরমোনজনিত সমস্যা আগে থেকেই থাকতে পারে বা গর্ভকালীন সময়ে শনাক্ত হতে পারে। যেভাবেই হোক, সঠিক চিকিৎসা না হলে মা ও শিশুর জন্য যথেষ্ঠ ঝুঁকির কারণ থাকবে। থায়রয়েডজনিত সমস্যাগুলোর প্রায় সবই হয় প্রতিরোধযোগ্য অথবা নিরাময়যোগ্য। এর জন্য প্রয়োজন সময়োপযোগী পদক্ষেপ। আর সন্তান ধারণের পরিকল্পনার শুরুতেই সম্ভাব্য মায়ের থায়রয়েড হরমোনের অবস্থা (পরীক্ষা করে নিশ্চিৎ হওয়া) জেনে নিতে হবে। ডায়াবেটিসের ক্ষেত্রেও তাই।’

এ বইটি সন্তান ধারণ করতে আগ্রহী মহিলাদের, তাদের পরিবারের সদস্যদেরসহ বাংলা ভাষাভাষি মানুষদেরকে গর্ভধারণ পূর্ববর্তী পরিকল্পনা, গর্ভকালীন সময়ে ডায়াবেটিস, থায়রয়েডের সমস্যা ও উচ্চ রক্তচাপ করণীয় এবং সন্তান প্রসব পরবর্তী পরিকল্পনা করতে সহায়ক হবে বলে আশা করা হচ্ছে।